বৃহস্পতিবার , ৩০ মে ২০২৪

মোংলা বন্দরে পৌছেছে মেট্রোরেলের ১৪ তম চালান

॥ বাগেরহাট প্রতিনিধি ॥

টি কোচ ও ৪টি ইঞ্জিনসহ মেট্রোরেলের আরও একটি চালান নিয়ে মোংলা বন্দরে আসবে বিদেশী বানিজ্যিক জাহাজ এমভি হরিজন-৯। ২৭ ডিসেম্বর জাপানের কোবে বন্দন থেকে ছেড়ে আসা এ জাহাজটি ১৮ জানুয়ারী বুধবার সকাল ১১টায় বন্দরের ৮নং জেটিতে নঙ্গর করেছে। দুপুরের পালা থেকে মেট্রোরেলের পন্যগুলো খালাস কাজ শুরু করে পন্য খালাসকারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স খুলনা ট্রেডার্স লিঃ। এ পর্যন্ত ১৪ তম চালান সহ মোট ১৩৮টি কোচ ও ইঞ্জিন মোংলা বন্দর দিয়ে খালাস করা হলো। বাকি আরো ৬টি কোচ ও ইঞ্জিন এ বন্দর দিয়ে খালাসের কথা রয়েছে বলে জানায় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।

 

এর আগে ১৩তম চালানে ৬টি কোচ ও ২টি ইঞ্জিন মোংলা বন্দর থেকে খালাস হয়। আর এবারের ১৪ তম চালানে মোট ৮টি কোচ ও ৪টি ইঞ্জিন সহ বেশ কিছু প্যাকেজে বিভিন্ন যন্ত্রাংশ মোংলা বন্দরের মাধ্যমে খালাস হবে।

আমদানীকারক প্রতিষ্ঠান সুত্রে জানায়, গত ডিসেম্বর মাসের ২৭ ডিসেম্বর জাপানের কোবে বন্দর থেকে ছেড়ে আসা মেট্রোরেলের কোচও ইঞ্জিন বোঝাই জাহাজটি প্রথমে সিঙ্গাপুর হয়ে চট্ট্রগ্রামে এসে কিছু মেশিনারিজ পন্য খালাস করে। পরে ১৬ ডিসেম্বর রাতে চট্রগ্রাম বন্দর থেকে ছেড়ে আসা জাহাজটি ১৮ ডিসেম্বর মোংলা বন্দরের ভিড়েছে।

জাহাজটিতে ৮টি কোচ ও ৪টি ইঞ্জিন ছাড়াও ১২টি ইউনিটে আরও ৮৮টি প্যাকেজে মোট ৫শ মেট্রিক টন মেশিনারিজ রয়েছে। ১৮ ডিসেম্বর দুপুরের পালা থেকে মেট্টোরেলের মেশিনারিজ পন্যগুলো খালাস কাজ শুরু করবে শ্রমিক ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স খুলনা ট্রেডার্স লিঃ বলে জানায় শিপিং এজেন্ট।

পানামা পতাকাবাহী বিদেশী বানিজ্যিক এ জাহাজটি এর আগেও ২বার মেট্টোেরেলের পন্য নিয়ে এ বন্দরে খালাস করেছে। গত বছরের ৩১ মার্চ ৬টি কোচ ও ২টি ইঞ্জিন সহ প্রথম চালান নিয়ে মোংলা বন্দরে এসে মেট্রোরেলের যন্ত্রাংশ মোংলা বন্দর থেকে পন্য খালাস কার্যক্রম শুরু হয়।

মোংলা বন্দরে নঙ্গর করা বিদেশী জাহাজটি থেকে এবারের চালানে মেট্রোরেলের পন্যগুলো খালাস করতে সময় লাগবে মাত্র ২৪ ঘন্টা বলে জানায় জাহাজটির স্থানীয় শিপিং এজেন্ট কর্তৃপ। আর খালাস প্রক্রিয়া নির্বিঘ্নে করতে জাপান ও মালোয়শিয়া সহ দেশীয় টেকনিশিয়ানদের একটি দল উপস্থিত থেকে পন্যগুলো তদারকি করবে।

এর আগে ১৩তম চালানে ৬টি কোচ ও ২টি ইঞ্জিন মোংলা বন্দর থেকে খালাস হয়। আর এবারের ১৪ তম চালানে মোট ৮টি কোচ ও ৪টি ইঞ্জিন সহ বেশ কিছু প্যাকেজে বিভিন্ন যন্ত্রাংশ মোংলা বন্দরের মাধ্যমে খালাস হবে।

আগামী ফেব্রয়ারী মাসে মেট্রোরেলের আরও একটি চালান আসার কথা রয়েছে। এ পন্যগুলো খালাসের পর দেশী-বিদেশী টেকনিশিয়ান দল তদারকির মাধ্যমে ২টি বার্জে পন্যগুলো ঢাকার দিয়াবাড়ী ডিপোতে পৌছাবে।

আবহাওয়া অনুকুলে থাকলে কোচ বাহী বার্জ দুটি নৌ-পথে আগামী ২৫/২৬ জানুয়ারীর মধ্যে দিয়াবাড়ি ডিপোতে পৌছে যাবে বলে আসা করছে সংশ্লিষ্টরা।

আর সেখানে পরিক্ষা নিরিক্ষা শেষে সংযুক্ত করা হবে চলমান মেট্টোরেলের সাথে। চলতি বছরের সামনের মাসের মধ্যে মেট্রোরেলের বাকি কোচ ও ইঞ্জিন মোংলা বন্দর দিয়ে খালাস হওয়ার কথা রয়েছে বলে জানায় এ আমদানীকারন প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা।

মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান রিয়ার এডমিরাল মোহাম্মাদ মুসা বলেন, দেশে আমদানিকৃত মেট্রোরেলের এসব কোচ মোংলা বন্দর দিয়ে খালাস হওয়ায় বন্দরের সমতা বেড়েছে।

শুধু মেট্রোরেলই নয়, এর আগে পদ্মা সেতু, রুপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র, রামপাল তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্র ও বঙ্গবন্ধু রেল সেতুসহ বিভিন্ন প্রকল্পের মালামাল ও যন্ত্রাংশ মোংলা বন্দর দিয়ে খালাস হয়েছে

। দক্ষ লোকের মাধ্যমে মালামালগুলে জাহাজ থেকে বার্জে বোঝাই করে দেয়া হয়েছে। যা নৌ-পথে কয়েক দিনের মধ্যে ঢাকার উত্তরা দিয়াবাড়ী ডিপোতে পৌছাবে। এমভি হরিজন-৯ জাহাজের এর স্থানীয় শিপিং এজেন্ট ও এনশিয়েন্ট স্টিম শিপ কোম্পানি লিঃ’র ব্যবস্থাপক মোঃ ওয়াহিদুজ্জামান বলেন,

এ পর্যন্ত ১৪টি জাহাজে করে মেট্রোরেলের ইঞ্জিনসহ মোট ১৩৮টি কোচ ও ইঞ্জিন সহ এর যন্ত্রাংশ মোংলা বন্দর দিয়ে খালাস হয়েছে। আগামী মাসে মেট্রোরেলের আরও একটি চালান আসার কথা রয়েছে। সব মিলে চলতি বছরে মেট্রোরেলের সর্ব মোট ১৪৪টি কোচ ও ইঞ্জিন আসবে এবং মোংলা বন্দর দিয়ে খালাস হবে।

মেট্রোরেলের নির্মান কাজ শেষ হলে প্রতি ঘন্টায় ৮০ হাজার যাত্রী যাতায়াত করতে পারেব, ফলে ঘনবসতিপূর্ন ঢাকার যোগাযোগ ব্যবস্থা আধুনিক ও যানজট নিরসনে গুরুত্বপূর্ন ভুমিকা রাখবে এ মেট্রোরেলের মাধ্যমে বলে জানান এ শিপিং এজেন্ট ও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।

Check Also

গোয়ালন্দে ধান-চাল -গম ক্রয় কার্যক্রমের উদ্বোধন

॥ আবুল হোসেন, রাজবাড়ী জেলা প্রতিনিধি ॥ রাজবাড়ীর গোয়ালন্দে সরকারীভাবে বোরো ধান,চাল ও গম ক্রয় …