বুধবার , ১৭ জুলাই ২০২৪

উল্লাপাড়া চলনবিলের বুক চিরে নির্মিত আধুনিক আঞ্চলিক সড়ক এখন বিনোদনের অন্যতম স্থান

॥ এ আর রাজু, উল্লাপাড়া (সিরাজঞ্জ) প্রতিনিধি ॥

সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ার চলনবিলের বুক চিরে নির্মিত বাংলাপাড়া -উধুনিয়া আকাবাকা সড়ক এখন বিনোদনের অন্য রকম স্থান। চলনবিল অধ্যুষিত সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ার উধুনিয়া, বড়পাঙ্গাসী ও লাহিড়ী মোহনপুরের বাসিন্দাদের সারা বছর উল্লাপাড়া উপজেলা সদরে যাতায়াতে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হতো। ভাল রাস্তা ছিল না। তার ওপর বর্ষা মৌসুমে নৌকাই ছিল চলাচলের একমাত্র বাহন।

স্বাধীনতার পর থেকেই এসব ইউনিয়নের মানুষ চলনবিলে বন্যামুক্ত উচ্চতায় স্থায়ীভাবে একটি প্রশস্ত রাস্তা নির্মাণের দাবি জানিয়ে আসছিলেন। অবশেষে সড়ক ও জনপথ বিভাগ প্রায় ২৫ কোটি টাকা ব্যয়ে এ বছর মোহনপুর থেকে বাংলাপাড়া হয়ে উধুনিয়া পর্যন্ত ৬ কিলোমিটার দীর্ঘ একটি পাকা রাস্তা নির্মাণ করেছে।

 

রাস্তাটিতে অনেকে বেড়াতে এসে নৌকা ভাড়া করে বিস্তীর্ন চলনবিলের পানির মধ্যে ঘুরে বেড়ায়। এতে মাঝিরা অনেক লাভবান হচ্ছেন। আর এই সড়কে পর্যটকের আগমনে রাস্তাটির দুই পাশে গড়ে ওঠেছে ছোট ছোট দোকান। যা এই এলাকার অর্থনীতিতে বিরাট অবদান রাখছে।

চলনবিলের মাঝখানে উচু করে রাস্তা নির্মাণ করায় এটি এখন দৃষ্টি নন্দিত বিনোদনের কেন্দ্রে পরিণত হয়েছে। প্রতিদিন অসংখ্য ভ্রমণ পিপাসু মানুষের সমাগম ঘটে এই সড়কে । চারিদিকে বিস্তির্ন পানি, নীল আকাশে সাদা মেঘের ভেলা, সচ্ছ জলরাশি,এ যেন বিধাতার এক অপরূপ সৃষ্টি।

আর এই মনোমুগ্ধকর প্রকৃতিক সৌন্দর্য উপভোগ করতে প্রতিদিন দূর দূরান্ত অনেক লোক আসে এই সড়কে।বেলা যত গড়তে থাকে এখানকার মুগ্ধতা তত বাড়তে থাকে। প্রতিদিন বিকেল বেলা শিশু থেকে বৃদ্ধ সকল বয়সের মানুষের সমাগম ঘটে। রাস্তাটির দুই পাশে ব্লকের বেষ্টনির কারনে রাস্তাটির সৌন্দর্যের নতুন মাত্রা যোগ হয়েছে।

রাস্তাটিতে অনেকে বেড়াতে এসে নৌকা ভাড়া করে বিস্তীর্ন চলনবিলের পানির মধ্যে ঘুরে বেড়ায়। এতে মাঝিরা অনেক লাভবান হচ্ছেন। আর এই সড়কে পর্যটকের আগমনে রাস্তাটির দুই পাশে গড়ে ওঠেছে ছোট ছোট দোকান। যা এই এলাকার অর্থনীতিতে বিরাট অবদান রাখছে।

রাস্তায় ঘুরতে আসা এক পর্যটক জানায়, এখনকার পরিবেশ অনেক সুন্দর,আবহাওয়া অনেক ভালো,মনোরম পরিবেশ। আরেক জন জানায়,আমি অনেক দূর থেকে ঘুরতে এসেছি,আমার কাছে ভালোই লাগল,অনেক লোক বেড়াতে আসে আমিও বেড়াতে আসলাম। এখানকার আবহাওয়ার ও পরিবেশ পর্যটনের উপযোগী হওয়ার কারণে পর্যটন এলাকা করার দাবী স্থানীয়দের।

 

আধুনিক ডিজাইনের অত্যন্ত সুন্দর রাস্তা এবং সেই সঙ্গে চলনবিলের সৌন্দর্য উপভোগ করতে কয়েকমাস ধরেই প্রতিদিন দুপুরের পর থেকেই শতশত নারী পুরুষ ও শিশুরা এই রাস্তায় বেড়াতে আসছেন। দূরদুরান্ত থেকে নৌকা যোগেও আসছেন অনেক মানুষ।

বাংলাপাড়া-উধুনিয়া আঞ্চলিক সড়কের পাশে নতুন নির্মিত জলডাঙ্গা কফি হাউজথ নামের একটি কফি হাউজের মালিক বকুল হোসেন জানান, চলনবিলের পানির ওপরে এই নান্দনিক কফি হাউজ প্রতিষ্ঠা করেন এবং তার সঙ্গে রয়েছেন আরও কয়েকজন অংশীদার। বকুল হোসেন আরো বলেন, বাংলাদেশে এই প্রথম ভাসমান নান্দনিক কফি হাউজ আর দ্বিতীয়টি নেই।

বাংলাপাড়া-উধুনিয়া রাস্তাটি সিরাজগঞ্জ ও পাবনা জেলার মানুষের জন্য এখন একটি নান্দনিক ভ্রমণ স্থানে পরিণত হয়েছে। এখানে প্রাণ প্রকৃতির ধারক চলন বিলের নৈসর্গিক দৃশ্য এখন প্রতিনিয়তই ভ্রমণ পিপাসুদের নজর কাড়ছে।

Check Also

গোয়ালন্দে পবিত্র আশুরা উপলক্ষে তাজিয়া মিছিল অনুষ্ঠিত।

॥  আবুল হোসেন, রাজবাড়ী জেলা প্রতিনিধি ॥ পবিত্র আশুরা উপলক্ষ্যে রাজবাড়ীর গোয়ালন্দের দৌলতদিয়া খানকা শরীফ …