সোমবার , ১৭ জুন ২০২৪

মামলা সংক্রান্ত ও অবৈধ নিয়োগে অপারগতা প্রকাশ করায় পদ হারালেন কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ

॥ এ আর রাজু, উল্লাপাড়া (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি ॥

সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া উপজেলার বাগমারা বি এস স্কুল এন্ড কলেজের মামলা সংক্রান্ত অবৈধ নিয়োগে অপারগতা প্রকাশ করায় পদ হারালেন কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মাহমুদ আলী।

 

চাকরি প্রার্থীদের মামলা ও বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ চলমান রেখে নিয়োগ পরীক্ষা সম্পন্ন করার নির্দেশ দেন কলেজ পরিচালনা কমিটির সভাপতি মোঃ হাফিজুর রহমান হাফিজ।

শুক্রবার সকালে স্থানীয় উল্লাপাড়া সরকারি আকবর আলী কলেজে বাগমারা বি এস স্কুল এন্ড কলেজের ৩ টি পদে নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। এতে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মাহমুদ আলী এই অবৈধ্য নিয়োগ পরীক্ষা সম্পন্ন করতে অপারগতা প্রকাশ করায় সভাপতি হাফিজ চলতি দায়িত্বের (ভারপ্রাপ্ত) অধ্যক্ষকের নিকট থেকে জোরপূর্বক অব্যাহতি পত্র নেন বলে অভিযোগ করেন।

প্রতিষ্ঠানের নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পর সভাপতি কমিটির অন্য সকল সদস্যের নিকট থেকে রেজুলেশন বহিতে জোরপূর্বক ৭ টি করে স্বাক্ষর গ্রহন করেন। তার পছন্দের ব্যক্তিদের নিয়োগ দিতে।

এ সময় অধ্যক্ষ কে সভাপতি হাফিজ বিভিন্ন ভয়ভীতি ও জীবননাশের হুমকি দেন বলে সংবাদ কর্মীদের কাছে মৌখিক অভিযোগ করেন মাহমুদ আলী।

ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মাহমুদ আলী অভিযোগ করে বলেন, আমি গত ২০২১ সালের জানুয়ারি মাস থেকে বাগমারা বি এস স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ (ভারপ্রাপ্ত) হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছি। হাফিজুর রহমান ক্ষমতাশীন দলের নেতা হওয়ার সুবাদে অবৈধ প্রক্রিয়ায় তৃতীয়বারের মতো পর পর সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন তিনি।

প্রতিষ্ঠানের নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পর সভাপতি কমিটির অন্য সকল সদস্যের নিকট থেকে রেজুলেশন বহিতে জোরপূর্বক ৭ টি করে স্বাক্ষর গ্রহন করেন। তার পছন্দের ব্যক্তিদের নিয়োগ দিতে।

চাকরির আবেদনকারী অন্য প্রার্থীরা বিষয়টি জেনে গেলে তারা বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ দিতে শুরু করেন। পরবর্তীতে আদালতে মামলা দায়ের করে তিন চাকরিপার্থী। গত শুক্রবার সকালে নিয়োগ পরীক্ষার আয়োজন করেন সভাপতি হাফিজ। কিন্তু নিয়োগ বিষয়ে আদালতে মামলা চলমান থাকায় ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ অপরাগতা প্রকাশ করে নিয়োগে বিষয়ে।

এ সময় সভাপতি মোঃ হাফিজুর রহমান তাকে (অধ্যক্ষ) কে তার পদ থেকে অব্যহতি পত্র দেওয়ার জন্য বিভিন্ন ভয়ভীতি ও হুমকি প্রদর্শন করে। তাকে এক পর্যায়ে জীবননাশেরও হুমকি দেন হাফিজ। তোপের মুখে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মাহমুদ আলী অব্যাহতি পত্র দিতে বাধ্য হন। অব্যাহতি পত্রে সভাপতি বিগত ২৫ অক্টোবর তারিখ উল্লেখ করে স্বাক্ষর নেন।

ভারপ্রাপ্ত অধক্ষের নিকট থেকে জোরপূর্বক অব্যাহতি পত্র নেওয়ার অভিযোগে বাগমারা বি এস স্কুল এন্ড কলেজের সভাপতি মোঃ হাফিজুর রহমান হাফিজ বলেন, এটা সত্য নয়। তার স্ত্রীর শারীরিক অসুস্থতার কারণে তিনি অধ্যক্ষ ( ভারপ্রাপ্ত) পদ থেকে অব্যাহতি নিয়েছেন।

নিয়োগ পরীক্ষার ডিজি প্রতিনিধি উল্লাপাড়ার সরকারি আকবর আলী কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ মাহফুজুল ইসলাম বলেন, বাগমারা বি এস স্কুল এন্ড কলেজের নিয়োগ পরীক্ষা অনিবার্য কারনবশত বন্ধ ঘোষনা করা হয়েছে। পরবর্তীতে নিয়োগ পরীক্ষার তারিখ জানানো হবে।

Check Also

দৌলতদিয়ায় উত্তরন ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে পূর্বপাড়ার ২ হাজার দুঃস্হ্য নারীদের জন্য কুরবানি মাংস বিতরণ

॥ আবুল হোসেন, রাজবাড়ী জেলা প্রতিনিধি ॥ রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়া পূর্ব পাড়ার (যৌনপল্লীর) দুই …