শনিবার , ১৩ এপ্রিল ২০২৪
(ক্যাপশনঃ পাংশার শাহমিরপুর বাজার থেকে খেয়াঘাট পর্যন্ত সড়কের বেহাল দশা)

পাংশার শাহমিরপুর বাজার থেকে খেয়াঘাট পর্যন্ত দেড় কিলোমিটার সড়কের বেহাল দশা

॥ মোক্তার হোসেন, পাংশা (রাজবাড়ী) প্রতিনিধি ॥

রাজবাড়ী জেলার পাংশা উপজেলার হাবাসপুর ইউনিয়নের শাহমিরপুর বাজার থেকে পদ্মা নদীর শাহমিরপুর খেয়াঘাট পর্যন্ত প্রায় দেড় কিলোমিটার সড়কটি বেহাল অবস্থায় পড়ে আছে। ইট উঠে গিয়ে সিংহভাগ সড়কে ছোট বড় খানাখন্দ-গর্তের সৃষ্টি হয়েছে।

 

কোথায়ও কোথায়ও কর্দমাক্ত হয়ে পড়ে। সম্প্রতি শাহমিরপুর ব্রিজের উত্তর পাশে সড়ক ভেঙ্গে গাড়ী চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়ে। কখনও কখনও দুর্ঘটনাও ঘটেছে।

 জানা যায়, হাবাসপুর ইউপির শাহমিরপুর গ্রামের অধিকাংশই কর্মজীবী মানুষ। এলাকায় প্রাথমিক বিদ্যালয়, একাধিক মসজিদ, একাধিক বাজার, সরকারী-বেসরকারী প্রতিষ্ঠানসহ নানা প্রতিষ্ঠান রয়েছে জনবহুল শাহমিরপুর গ্রামে। শাহমিরপুর বাজার থেকে পদ্মা নদীর শাহমিরপুর খেয়াঘাট পর্যন্ত সড়কটি অত্র গ্রামের প্রধান সড়ক।

এ সড়ক পথেই এলাকার মানুষ পাংশা শহরসহ বিভিন্ন এলাকায় যাওয়া আসা করে। সড়কে ব্যাটারী চালিত অটোবাইক, ভ্যান, ইঞ্জিন চালিত বাটা হাম্বারসহ নানা ধরণের গাড়ী চলাচল করে। গাড়ী চলাচল, বন্যা ও অতিবৃষ্টিতে কয়েক বছরে সড়কের সিংহভাগ জায়গায় ছোট বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। বৃষ্টি হলেই ভাঙ্গা রাস্তার গর্তে পানি জমে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়।

কোথায়ও কোথায়ও কর্দমাক্ত হয়ে পড়ে। সম্প্রতি শাহমিরপুর ব্রিজের উত্তর পাশে সড়ক ভেঙ্গে গাড়ী চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়ে। কখনও কখনও দুর্ঘটনাও ঘটেছে।

জনস্বার্থে কয়েকদিন আগে নিজে উদ্যোগ নিয়ে ব্যক্তিগত অর্থে ব্রিজের উত্তর পাশে ভাঙ্গা জায়গায় খোয়া ও বালি ফেলে ঢালাই করে সংস্কার করেন হাবাসপুর ইউপির ৯নং ওয়ার্ডের জনপ্রিয় মেম্বার ও শাহমিরপুর গ্রামের বাসিন্দা খোকন বিশ্বাস। এছাড়া তার উদ্যোগে শাহমিরপুর বাজারের পাশে কর্দমাক্ত স্থানে বালি ফেলানো হয়েছে।

এতে করে ব্রিজে যানবাহন উঠানামায় ঝুঁকি কমেছে। কিন্তু পুরা রাস্তা স্থায়ীভাবে সংস্কার করা না হলে জনদুর্ভোগের মাত্রা দিনদিন বেড়ে যাবে। শুক্রবার (১৪ জুলাই) বিকালে সরেজমিন হাবাসপুর ইউপির ৯নং ওয়ার্ডের মেম্বার খোকন বিশ্বাস ও হাবাসপুর ইউপির ৯নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সায়েদুর রহমান জানান, শাহমিরপুর খেয়াঘাট এক সময়ে ফেরিঘাট হিসেবে পরিচিত ছিল।

শাহমিরপুর খেয়াঘাট থেকে পাবনা জেলার সুজানগর উপজেলার সাতবাড়ীয়া ও রায়পুর ঘাটে খেয়া পারাপার হত। বর্তমানে হাবাসপুর খেয়াঘাট থেকে সাতবাড়ীয়া ঘাটে খেয়া পারাপার শুরু হওয়ায় শাহমিরপুর ঘাটে খেয়া পারাপার বন্ধ রাখা হয়েছে। শাহমিরপুর বাজার থেকে খেয়াঘাট পর্যন্ত প্রায় দেড় কিলোমিটার রাস্তা পিচ ঢালাই করে উন্নয়ন জরুরী হয়ে পড়েছে।

ইউপি মেম্বার খোকন বিশ্বাস আরো বলেন, রাস্তাটির উন্নয়নের জন্য রাজবাড়ী-২ আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ জিল্লুল হাকিমকে অনুরোধ করেছি। তিনি আশ্বাস দিয়েছেন। রাস্তাটির উন্নয়ন হলে এলাকাবাসীর আর্থসামাজিক উন্নয়নের নতুন দ্বার উন্মোচিত হবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

Check Also

ঈদুল ফিতর উপলক্ষ্যে জাতীয় যুব জোট রাজশাহী মহানগর শুভেচ্ছা বার্তা

॥ রাজশাহী জেলা প্রতিনিধি ॥ জাতীয় যুব জোট রাজশাহী মহানগর সভাপতি শরিফুল ইসলাম সুজন ও …