শনিবার , ১৩ এপ্রিল ২০২৪

ভিজিএফ’র স্লিপ সংরক্ষণ না করার অভিযোগে চেয়ারম্যান আফছারের হাতে লাঞ্ছিত ও অবরুদ্ধ ইউপি সচিব

॥ এ আর রাজু, উল্লাপাড়া (সিরাজঞ্জ) প্রতিনিধি ॥

ভিজিএফ’র স্লিপ সংরক্ষণ না করায় চেয়ারম্যানের হাতে প্রকাশ্যে লাঞ্ছিত ও অবরুদ্ধ হওয়ার অভিযোগ তুলেছেন ইউপি সচিব হেলাল উদ্দিন। অসহায় ও দুস্থদের মধ্যে প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে (ভিজিএফ)’র চাউল বিতরণের সময় জনগণের সামনে চেয়ারম্যান নিজেই কিল, ঘুষি ও থাপ্পড় মেরে তাকে লাঞ্ছিত করেন বলে জানান ইউপি সচিবকে।

পরে চেয়ারম্যান আফছার আলী অবরুদ্ধ করে আটকে রাখেন তাকে। খবর পেয়ে উপজেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার (ভুমি) ঘটনাস্থল থেকে সচিবকে উদ্ধার করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে নিয়ে আসেন। ঘটনাটি ঘটেছে সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া উপজেলার দূর্গানগর ইউনিয়ন পরিষদে। এদিকে সচিব হেলাল চেয়ারম্যানকেও মারধর করেছেন বলে অভিযোগ তুলেছেন চেয়ারম্যান আফছার আলী।

 

এ ব্যাপারে দূর্গানগর ইউপি চেয়ারম্যান আফসার আলীক মুঠোফোন জিজ্ঞাস করলে তিনি জানান, তার পরিষদের ইউপি সচিব হেলাল উদ্দিনকে চাউল বিতরণের স্লিপগুলোর নিরাপদে রাখার বিষয়ে গালি দিলে সচিব তাকেই শারীরিক নির্যাতন করেন।

রবিবার (১৮ জুন) বিকেলে উপজেলার দুর্গানগর ইউনিয়ন পরিষদে অসহায় ও দুস্থদের মাঝে ভিজিএফ এর চাউল বিতরণের সময় এ ঘটনা ঘটে।

দূর্গানগর ইউনিয়ন পরিষদ সচিব হেলাল উদ্দিন স্থানীয় গণমাধ্যম কর্মী ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে অভিযোগ করে বলেন, আসন্ন ঈদুল আযহা উপলক্ষে রবিবার অসহায় ও দুস্থদের মাঝে ভিজিএফ এর চাল বিতরণের কার্যক্রম চলছিল। এমন সময় তিনি (সচিব) চাউল বিতরণের স্লিপ ব্যাগে সংরক্ষণ করছিলেন।

চেয়ারম্যান আফসার আলীকে নামাজের কথা বলে তিনি স্লিপ বোঝাই ব্যাগটি পরিষদ কক্ষের একটি চেয়ারে রেখে নামাজ পড়তে যান। নামাজ পড়ে তিনি ফিরে এলে চেয়ারম্যান স্লিপ হারানোর অজুহাত তুলে অহেতুক সচিব (হেলাল) কে অর্তকিত গালিগালাজ ও অপমান অপদস্ত করা শুরু করেন। এ সময় তিনি প্রতিবাদ করলে উপস্থিত সকলের সামনে চেয়ারম্যান আফছার আলী নিজেই কিল, ঘুষি ও থাপ্পড় মেরে তাকে ফেলে দেন। পরে অবরুদ্ধ করে রাখেন তার নিজ কার্যালয়ে।

 

তিনি আরও জানান, এসময় সাধারণ জনগণ ছাড়াও পরিষদের সদস্য ইসরাফিল টুটুল, ছাইদুর রহমান, হাফিজুর রহমান, শিহাব উদ্দীন, হুকুম আলী, এবাদ আলীসহ আরোও অনেকে উপস্থিত ছিলেন। পরে সচিব মোবাইল ফোনে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ উজ্জল হোসেনকে জানান। ফোন পেয়ে ইউএনও উল্লাপাড়া সহকারী কমিশনার (ভূমি) কে পাঠিয়ে দুর্গানগর ইউনিয়ন পরিষদ থেকে সচিব হেলাল উদ্দিনকে উদ্ধার করে ইউএনও অফিসে নিয়ে আসেন।

এ ব্যাপারে দূর্গানগর ইউপি চেয়ারম্যান আফসার আলীক মুঠোফোন জিজ্ঞাস করলে তিনি জানান, তার পরিষদের ইউপি সচিব হেলাল উদ্দিনকে চাউল বিতরণের স্লিপগুলোর নিরাপদে রাখার বিষয়ে গালি দিলে সচিব তাকেই শারীরিক নির্যাতন করেন।

এ সময় স্থানীয় জনগণ অভিযোগ করে বলেন, উপজেলার দূর্গানগর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ আফছার আলীর বিরুদ্ধে সামাজিক নিরাপত্তা বেস্টুনির সুবিধা ভোগীদের ভাতা, বিভিন্ন কর্মসূচীর টাকা আত্মসাৎ সহ নানাবিধ দুর্নীতির অভিযোগ রয়েছে এই চেয়ারম্যান বিরুদ্ধে।

উল্লাপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ উজ্জল হোসেন জানান, দুর্গানগর ইউপি চেয়ারম্যান আফছার আলী তার পরিষদ সচিবকে কিল, ঘুষি ও থাপ্পড় মেরে কার্যালয়ে অবরুদ্ধ করে রাখার অভিযোগ মুঠোফোনে পাই। পরক্ষণেই সহকারী কমিশনার (ভূমি)কে ঘটনাস্থলে পাঠিয়ে সচিবকে উদ্ধার করে উপজেলা পরিষদে নিয়ে আসা হয়। বিষয়টি স্থানীয় সরকারের উর্ধ্বতন কর্মকতাকে অবহিত করা হয়েছে। তিনি তদন্ত করে বিষয়টি দেখবেন বলে আশ্বস্থ করেছেন।

Check Also

ঈদুল ফিতর উপলক্ষ্যে জাতীয় যুব জোট রাজশাহী মহানগর শুভেচ্ছা বার্তা

॥ রাজশাহী জেলা প্রতিনিধি ॥ জাতীয় যুব জোট রাজশাহী মহানগর সভাপতি শরিফুল ইসলাম সুজন ও …