বৃহস্পতিবার , ১৮ এপ্রিল ২০২৪

রাজবাড়ীতে তরমুজ খেয়ে একই পরিবারের চারজন হাসপাতালে ভর্তি।

॥ আবুল হোসেন, রাজবাড়ী জেলা প্রতিনিধি ॥

রাজবাড়ীতে তরমুজ খেয়ে চারজন ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন বলে দাবি স্বজনদের। তবে চিকিৎসক বলছেন, পরীক্ষার পরেই জানা যাবে প্রকৃত কারণ।

 

পরে রোববার তরমুজের বাকি অংশটুকু ইফতারের সময় খাওয়া হয়। এসময় পরিবারের পাঁচ সদস্যের মধ্যে চারজনই গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন। পরে সোমবার সকালে তারা হাসপাতালে ভর্তি হন।

সোমবার (২৫ মার্চ) দুপুরে ওই চারজন হাসপাতালে ভর্তি হন। চার রোগী হলেন- রাজবাড়ী সদর উপজেলার বরাট ইউনিয়নের হাউলী জয়পুর গ্রামের আমজাদ হোসেন, তার ছেলে রুহুল আমিন, পুত্রবধূ রুপসী বেগম ও নাতনী রাজিয়া আক্তার।

চিকিৎসাধীন রুহুল আমিন জানান, শনিবার রাজবাড়ী সদর উপজেলার দাদশী বাজার থেকে একটি তরমুজ কিনে বাড়ি যান তিনি। ওইদিন ইফতারে অর্ধেক তরমুজ খান তারা। পরে রোববার তরমুজের বাকি অংশটুকু ইফতারের সময় খাওয়া হয়। এসময় পরিবারের পাঁচ সদস্যের মধ্যে চারজনই গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন। পরে সোমবার সকালে তারা হাসপাতালে ভর্তি হন।

রাজবাড়ী সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. শেখ মোহাম্মদ আব্দুল হান্নান জানান, অসুস্থদের হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। ডায়রিয়া কি কারনে হয়েছে তা পরীক্ষার পর জানা যাবে।

তিনি আরও বলেন, অনেক সময় ব্যবসায়ীরা অতিরিক্ত লাভের আশায় তরমুজে ফরমালিন, স্যাকারিন, দূষিত পানিসহ নানান ধরনের ক্ষতিকর কেমিক্যাল মেশায়। এতে করে তরমুজ পাকা এবং লাল দেখানোর জন্য এগুলো খুবই বিপজ্জনক আকারে ধারন করে। এছাড়াও ইনজেকশনের সিরিঞ্জের মাধ্যমে তরমুজের বোঁটা দিয়ে এসব দ্রব্য ঢুকিয়ে দিয়ে পাকা ও লাল টকটকে বলে বিক্রি করা হয়। এমন তরমুজ খেয়ে অনেকেই অসুস্থ হয়ে পড়ার আশঙ্কা থাকে।

Check Also

ভিক্ষা ছেড়ে বিকল্প কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে বিশেষ চাহিদা সম্পর্ণ রতনদের পাশে প্রশাসন

॥ আবুল হোসেন, রাজবাড়ী জেলা প্রতিনিধি ॥ একটা সময় মানুষের দুয়ারে দুয়ারে হাত পেতে জীবিকা …